লকডাউনে মানুষের কথা ভেবে জনগণের কাছে ডাক বিভাগ পৌঁছে দেবে খাদ্যদ্রব্য । অসন্তুষ্ট কর্মীরা

লকডাউনে মানুষের কথা ভেবে জনগণের কাছে ডাক বিভাগ পৌঁছে দেবে খাদ্যদ্রব্য 

এখন ভারতবর্ষে টানা 21 দিন ধরে লকডাউন চলছে। এটা শুরু হয়েছে 24 মার্চ শেষ হবে কবে তা ঠিক নেই । দেশের এই অবস্থায় সমস্ত ব্যক্তি এখন ঘরের মধ্যে বসে আছে, কাজ তো দূরের কথা বাড়ি থেকে বেরোনোর নিষেধ ! এই পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে সাধারণ মানুষের কোন ধরনের অসুবিধা যাতে না হয় সেজন্য ভারত সরকার 1 লক্ষ 70 হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করেন দেশের জনসাধারণের স্বার্থে । দেশের সাধারণ মানুষ যাতে কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন না হন বা যারা দরিদ্র মানুষ রয়েছেন তাদের খাদ্যদ্রব্যের অভাব না হয় সেজন্য সরকার একাধিক প্রকল্প চালু করেন । আর এই প্রকল্প গুলির মধ্যে একটিতে বলা হয় দেশের জনসাধারণকে মাথাপিছু 7 কেজি করে চাল 1 কেজি করে ডাল ও সবজি পৌঁছে দেওয়া হবে । আরে খাদ্যদ্রব্য পৌঁছানোর দায়িত্ব দিয়েছেন ইন্ডিয়া পোস্ট অর্থাৎ ভারতীয় ডাক বিভাগকে । 


এই ব্যাপারে রাজ্যের প্রতিটি মুখ্য সচিবের কাছে সরকার থেকে চিঠি পাঠিয়ে দিয়েছেন ডাক বিভাগের সচিব প্রদিপ্ত কুমার বিশুই । তিনি চিঠিতে লেখেন ১ লক্ষ 56 হাজার ডাকঘর এবং তার সঙ্গে জড়িত বিপুল সংখ্যক কর্মী এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের কাছে পরিষেবা পৌঁছে দিতে পারে । কিন্তু এই সিদ্ধান্ত নেয়ার পর এই সমস্ত কর্মীরা বেঁকে বসেছেন ।
             কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ডাক বিভাগের কর্মীরা এ ব্যাপারে যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব কে প্রতিবাদ পত্র পাঠিয়েছেন তারা । তাদের বক্তব্য রাজ্যের মুখ্য সচিবের কাছে চিঠি পাঠিয়ে ডাক বিভাগ ব্যবসা বাড়ানোর যে সুযোগ খোঁজে তা আসলে কর্মীদের প্রাণের বিনিময়ে পেতে চাইছে তারা । যেখানে এখনও করোনাভাইরাস এর কোন প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি সেখানে সাধারণ মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে পণ্য বা টাকা পৌঁছে দেবার কাজে সামিল হতে বলা হচ্ছে ডাক কর্মীদের । যেখানে কর্মীরা ট্রেন-বাসের অভাবেই কাজের জায়গায় পৌঁছাতে পারছে না সেখানে কিভাবে ডাক পরিষেবা সম্পূর্ণ চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তা বুঝতে পারছেন না । আইটিবিপি পরিষেবায় বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে টাকা লেনদেন করতে হয় গ্রামীণ ডাক সেবক এর ঝুঁকিপূর্ণ কাজ কেন করবেন ? 
        আর এই জন্যই ডাক বিভাগের সমস্ত কর্মীরা একযোগে মুখ্য সচিবকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন যাতে এই কাজটা তাদেরকে না দিয়ে রেশনের মাধ্যমে করা হয় তার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে ।

Post a comment

0 Comments